জীবিকার সংকটে দেশে ফেরা  প্রবাসীরা

দৈনিক মাতৃভূমি ডেস্ক

দৈনিক মাতৃভূমি ডেস্ক

🕒 খবরটি প্রকাশিত হয়েছে: ৩:৩৪ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ২, ২০২০ | খবরটি পড়া হয়েছে 52 বার

এ বছর প্রবাসী কর্মীদের দেশে ফেরার হার পাঁচ গুণ। গত জানুয়ারি থেকে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত প্রায় আড়াই লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন।বেশির ভাগ প্রবাসী কর্মী ফিরেছেন করোনাকালে কাজ হারিয়ে। কেউ কেউ ছুটিতে এসে আর যেতে পারছেন না। কাউকে কাউকে বৈধতা না থাকায় ফিরতে হয়েছে। সমস্যা হলো, এই বিপুলসংখ্যক কর্মীর আবার বিদেশ যাওয়ার সুযোগ খুবই সীমিত হয়ে পড়েছে। দেশেও তাঁরা কোনো কাজ খুঁজে পাচ্ছেন না। দীর্ঘ সময় ধরে আয়হীন এসব কর্মীর পরিবার সংকটে পড়েছে।গত কয়েক মাসে ফেরত আসা কর্মীর হার আরও বেড়েছে। সদ্য শেষ হওয়া অক্টোবর মাসের প্রথম ২৪ দিনের হিসাব বলছে, এ সময়ে দেশে ফিরেছেন প্রায় ৬০ হাজার কর্মী। এখন দিনে গড়ে প্রায় আড়াই হাজার কর্মী ফিরছেন। এ প্রবণতা চলতে থাকলে বছর শেষে ফিরে আসা কর্মীর সংখ্যা চার লাখ ছাড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে।

 

ফিরে আসা কর্মীদের পুনর্বাসনে ৭০০ কোটি টাকার তহবিল তৈরি করছে সরকার। ঋণসহায়তা দিতে গত জুলাইয়ে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড থেকে প্রবাসীকল্যাণ ব্যাংকে ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। এ তহবিলে আরও ৫০০ কোটি টাকা যুক্ত হবে। এ তহবিল থেকে প্রবাসী পুনর্বাসন ঋণ নামে ৪ শতাংশ সরল সুদে ২ থেকে ৫ লাখ টাকা পাবেন প্রবাসীরা। ১৫ জুলাই থেকে আবেদন সংগ্রহ করা হলেও ঋণ ছাড় হয়েছে খুবই কম। এখন পর্যন্ত ১ কোটি টাকার মতো ছাড় হয়েছে বলে জানা গেছে।করোনাকালে দেশে ফেরা প্রবাসী কর্মীদের অবস্থা উঠে এসেছে তিনটি জরিপে।

 

এর মধ্যে আগস্টে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) এক জরিপ বলছে, দেশে ফেরা ৭০ শতাংশ প্রবাসী কর্মী জীবিকা নিয়ে সংকটে রয়েছেন। অভিবাসন নিয়ে কাজ করা সংস্থা রিফিউজি অ্যান্ড মাইগ্রেটরি মুভমেন্ট রিসার্চ ইউনিট (রামরু) জুলাইয়ে একটি জরিপের ফল প্রকাশ করে। সেখানে দেখা যায়, জরিপকালে ৬১ শতাংশ কর্মীর পরিবারে প্রবাসী আয় বা রেমিট্যান্স আসা পুরোপুরি বন্ধ ছিল।

 

টপ